• Blogtog

হৃত্তিকের দুরন্ত কামব্যাক, সত্যি গল্পে অতিনাটকীয় অ্যাকশন- Super 30 রিভিউ


Super 30 Review

আনন্দ কুমার একজন প্রখর বুদ্ধিদীপ্ত গণিতজ্ঞ, যে পাটনা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গোল্ডমেডাল পেয়ে প্রথমস্থান অধিকার করেন। এমন মেধা যার মধ্যে সে কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় এ সুযোগ পাবেন সেটাই স্বাভাবিক, কিন্তু তাতে কি শহর টা যে পাটনা এবং রাজ্যটা বিহার।


কঠিন দুর্নীতির সাথে লড়ে পথ বার করতে হয়। যেখানে মানা হয় যে রাজার সন্তানই একমাত্র রাজা হতে পারে। আনন্দ কুমার রাজার পুত্র নয় তাই টাকার অভাবে কেমব্রিজ এর স্বপ্ন তাঁকে ত্যাগ করতে হয়। বাবার মৃত্যু তে সংসারের হাল ধরতে পাঁপর বেচতে শুরু করলেন বাড়ি বাড়ি। প্রেমিকা রিতু বেশ সজ্জল পরিবারের , কিন্তু প্রেমিক পুরুষটিকে যথাযত সঙ্গ দিতে থাকতেন। যদিও চলচ্চিত্রের খাতিরে তাদের মিল টা আর হয়নি কিন্তু বাস্ববে, তা উল্টো। আনন্দ কুমারএর মতন মেধাবী মানুষের এরকম হাল দেখে লাল্লান কুমার যিনি IIT প্রবেশিকা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার জন্যে মোটা অংকের বিনিময়ে একটি ইনস্টিটিউশন চালনা করেন, আনন্দ কুমারকে গণিতের শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ করলেন এবং রমরমিয়ে ব্যবসা করতে লাগলেন।


আনন্দ ও বেশ কিছুদিনের মধ্যে নাম, যশ দুই ই কামিয়ে ফেললো। কিন্তু ফেলে আসা অতীত কে বিশেষ ভুলতে পারলো না, চোখের সামনে দেখলেন অনেক মেধা টাকার অভাবে দিনে দিনে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে, স্বেচ্ছায় মোটা মাইনের ইনস্টিটিউশন ছেড়ে শুরু করলেন নিজের কোচিং ক্লাস এবং বিনা মূল্যে শিক্ষা দিতে থাকলেন অভাব অনটনে থাকা সেই সব ছেলে মেয়ে গুলোর জন্য যারা স্বপ্ন দেখতে থেমে থাকে না।


এবারে শুরু হলো হিরো ভিলেন এর একটার পর একটা লড়াই। শেষে কি হয় তা আর খোলসা করে বললাম না। তবে এই হলো মূল সারাংশ। অভিনয় এর দিক থেকে বলা যায় পুরো ছবি জুড়ে হৃত্তিক। হ্যাঁ এভাবেও ফিরে আসা যায় l ভোজপুরি আঙ্গিকে কথা বলাটা বেশ আয়ত্ত করেছেন তবে ভালোর তো কোনো শেষ থাকে না। বাচ্চাগুলোর অভিনয় ও বেশ সাবলীল। ঋতুর চরিত্রে মৃনাল ঠাকুর মিষ্টি কিন্তু বিশেষ কোনো স্কোপ ছিলো না, পঙ্কজ ত্রিপাঠি সব সময়েই উচ্চমানের একজন অভিনেতা এবারও তার কোনো ত্রুটি নেই। CID খ্যাত আদিত্য শ্রীবাস্তব লাল্লানের ভূমিকায় এককথায় অনবদ্য। তবে ছবির শেষে অতিনাটকীয় ভাবে অ্যাকশন না দেখালেও চলতো।


সব শেষে বলবো সুপার 30 নিশ্চই একবার অন্তত পক্ষে দেখে আসা যায়, নিরাশ খুব একটা হবেন না।


ব্লগটগ এর তরফ থেকে তাই সুপার 30 কে 60% দিয়ে প্রথম বিভাগে পাস করানো হলো।

  • Facebook
  • Twitter
  • YouTube
  • Instagram

©2019 by Blogtog.