• Blogtog

আপাতত নিখিলেশ প্যারিসে, মইদুল ঢাকাতে আর সিদ্ধার্থ ইহ জগতের বাইরে।


ঋদ্ধিমান ভট্টাচার্য

কফি হাউসের সেই আড্ডাটা আজ আর নেই। কাল ভোর বেলায়, মাঙ্গালোরের এক বিচে Indian Coast Guard আর National Disaster Response Force এর দল খুঁজে পেল সিদ্ধার্থের মৃতদেহ। ২৯শে জুলাই সন্ধ্যে বেলায় মানসিক ভাবে বিপর্যস্ত সিদ্ধার্থ নিজের গাড়ির নিয়ে পৌঁছে গিয়েছিলেন নেত্রবতি নদীর কাছে। তারপর থেকেই নিখোঁজ। অবশেষে প্রানহীন শরীর মিলল। ২০১৭ থেকে চলে আসা ইনকাম ট্যাক্স ডিপারমেন্টের সাথে চাপান উতরের পরিনতি হল মৃত্যুতে। Tax evasion এর কেস, কুড়িটি অফিসের রেইড, শেয়ার সংক্রান্ত কাগজে সইয়ের গড়মিল- অনেক প্রশ্ন রেখে গেল। এরপর উত্তর আসবে সরকারি তরফ থেকেও। মানসিক ভাবে হেনস্থা করা হচ্ছিল বলে সিদ্ধার্থ যেমন দাবি করেছিলেন, তার সত্যি মিথ্যে সব একদিন হয়ত প্রকাশ পাবে। কিন্তু কি হবে জেন এক্সের কফি হাউসের ! সিদ্ধার্থর না থাকাটা কতটা ভারি হয়ে যাবে Café Coffee Day র ব্যবসায়িক লাইফ সাইকেলে- এটাই এখন সবচেয়ে বড় প্রশ্ন।


অর্থনীতিতে স্নাতক সিদ্ধার্থ ১৯৯৬ তে কর্ণাটকে প্রথম চালু করেছিলেন “ Café Coffee Day, "youth hangout" আর আজ সারা ভারতে ১৫০০র বেশি আউট লেট, সপ্তাহে কম বেশি ৫০০০০ মানুষের প্রেম, হতাশা, উদ্যোগ ব্যর্থটার নানা গল্প লেখা থাকে সাদা কফির কাপে ঠোঁটের ছোঁয়ায়। ক্যাফের সাথে আরও অনেক ব্যবসার সাথে যুক্ত ছিলেন সিদ্ধার্থ। তার মধ্যে একটি Daffco Furniture যা পরিচিত Dark Forest Furniture Company নামে। আমাজনের জঙ্গল থেকে আসত কাঠ। ১.৮৫ মিলিয়ন হেক্টর জঙ্গল লিজ নেওয়া ছিল। আর Guyanese government এর নিয়ম মেনে প্রতি হেক্টর থকে মাত্র চারটি গাছ কাটার অনুমতি মিলত। আর তার বদলে লাগাতে হতো গাছ।


এসব আপাতত স্মৃতি হয়ে রইল। নতুন কেও হয়ত হাল ধরবে। আপাতত নিখিলেশ প্যারিসে, মইদুল ঢাকাতে আর সিদ্ধার্থ ইহ জগতের বাইরে।


পড়ুনঃ


  • Facebook
  • Twitter
  • YouTube
  • Instagram

©2019 by Blogtog.