• Blogtog

আর কয়েক বছরের মধ্যেই কলকাতার অবস্থাও হবে চেন্নাইয়ের মতন


পানীয় জলের জন্যে লাইন

তাপমাত্রা দিনে দিনে বাড়ছে, বর্ষার অবস্থাও কাহিল। তারমাঝেই মাথা চাড়া দিয়ে উঠছে জলের সমস্যা কলকাতা শহরে। পানীয় জলের ওপর ভরসা না করতে পেরে বেশিরভাগ মানুষই ব্যবহার করছে পুকুরের জল। এ ছাড়াও দক্ষিণ কলকাতার এক বাসিন্দা জানিয়েছে প্রতিমাসে পানীয় জলের অভাবে জল কিনতেই তাদের খরচ হচ্ছে প্রায় তিন হাজার টাকা।


বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন অদূর ভবিষ্যতেই গ্রাউন্ড ওয়াটারের অভাবের প্রকোপে পড়তে চলেছে কলকাতা এবং পাশ্ববর্তী মফস্বল। ডক্টর পিকে সিকদার জানিয়েছেন- “Groundwater (availability) is rapidly shrinking in the city. It might lead to land subsidence as there is a layer of around 40 metres of clay underground and then sand that might give away.”


পড়ুনঃ সমকামিতার প্রথম লড়াই, প্রাইড মার্চের পঞ্চাশ বছর। স্টোনওয়ালের ইতিহাস


তিরিশ বছর ধরে কলকাতার পানীয় জলের সমীক্ষায় রত পিকে শিকদার আরো জানিয়েছেন ৫০-৬০ দশকেও কলকাতা শহরে গ্রাউন্ড ওয়াটারের এত চাপ ছিল না। কিন্তু ৭০-৮০ দশক থেকে কলকাতার দক্ষিণে নগরায়ন এবং জনসংখ্যা বৃদ্ধির ফলে গঙ্গার প্রবাহের ওপর জলচাপ সৃষ্টি হয়। যেই চাপ বর্তমানে মৌসুমী বর্ষার পরেও মিটছে না।



পুকুরের আশেপাশে জমা হচ্ছে নোংরা আবর্জনা। যার ফলে ছড়াচ্ছে বহু রোগ


শেষ পাঁচ দশকে, জলের লেভেল ১৫ থেকে ১৬ মিটার পর্যন্ত নেমে গেছে। যার সাথে যুক্ত হয়েছে জলে আয়রন এবং আর্সেনিকের সমস্যা। বর্ষার ঘাটতি, নির্বিচারে গাছ কেটে ফেলা, অত্যাধিক নগরায়ন, দূষণ যার অন্যতম প্রধান কিছু কারণ।

গ্রাউন্ড ওয়াটারের লেভেল ক্রমাগত কমতে থাকায় চাপ পরছে বহুতল ফ্ল্যাটের স্থায়িত্বেও।


সরকারিভাবে এই সমস্যার সমাধান না করা হলে অদূর ভবিষ্যতে এর পরিণাম যে চেন্নাইয়ের মতন ভয়ঙ্কর তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

  • Facebook
  • Twitter
  • YouTube
  • Instagram

©2019 by Blogtog.