• Blogtog

ভাষা, আপ্যায়ন, ইকনোমি, জ্যাম অথবা ইলিশ - কলকাতা না ঢাকা এগিয়ে বেশি?


শুভাঞ্জন বসু।

কলকাতা এবং ঢাকা। পশ্চিমবঙ্গ এবং বাংলাদেশ। আমদের ভাষা, আমাদের গান, আমাদের বড় হওয়া, কথা বলা সবই প্রায় একরকম। আমাদের ছাড়াও এই দুই শহরের মিল আছে বিস্তর। যেমন এই দুই শহরেই বাস যেখানে সেখানে দাঁড়িয়ে পরে, এই দুই শহরেই বেকারত্বের হার প্রায় সমান। ঢাকার ঢাকেশ্বরী কালী মন্দির এবং কলকাতার কালীঘাট দুই সমজাগ্রত আবার ঢাকার বায়তুল মুকাররম ও কলকাতার টিপু সুলতান মসজিদ বিখ্যাত। এরকম হাজারো মিল খুঁজে পাওয়া যাবে এই দুই শহরের। কিন্তু আজ আমরা দেখেনি এই দুই শহরের মধ্যে ফারাকগুলো কী কী।


১)কলকাতা বহুভাষিক, বহুজাতিক একটা শহর, বাংলা ছাড়াও অন্যান্য ভাষা কলকাতার পথেঘাটে শুনতে পাওয়া যায়। কিন্তু ঢাকাতে শুধুমাত্র বাংলাই একমাত্র প্রধান ভাষা।

২) ঢাকার Economy, কলকাতার তুলনায় ভালো এবং গরিবত্ব কম।


৩) যদিও এটাই আবার দুঃখের কারণ বহু ঢাকাবাসীর জন্যে। কারণ ঢাকায় স্ট্রিট ফুড, কলকাতার তুলনায় ভীষণ কম এবং খাবারের দামও তুলনামূলক ভাবে বেশি।


৪) ঢাকার পদ্মাপাড়ের ইলিশ ঢাকাবাসী সহ সমস্ত টুরিস্টদের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু। সেক্ষত্রে গঙ্গার পাড় পিছিয়ে পড়বে অনেকটাই।


৫) ঢাকার আয়তন এবং নদনদীর সংখ্যায় কলকাতার চেয়ে বেশি।


৬) ঢাকায় ট্র্যাফিক জ্যাম কলকাতার তুলনায় বহুগুণ বেশি। শাহবাগ, ধানমুন্ডি এলাকা হার মানাবে ধর্মতলা, রবীন্দ্রসদন, গড়িয়াহাটকে।


৭) কলকাতায় মাদক দ্রব্য সেবন ঢাকার তুলনায় বহুগুণ কম। ইদানিং পথে ঘাটে ঢাকার বিভিন্ন অঞ্চলে 'ইয়াবা' বা LSD সেবনকারীর সংখ্যা বেড়েছে বহুগুণ।


৮) টুরিস্টদের জন্যে অনেকটা এগিয়ে থাকবে কলকাতা। ঢাকার মূল আকর্ষণ হলো লালবাগ কেল্লা, আসন মঞ্জিল, শাহবাগ মিউজিওয়াম বা কার্জন হল। লালবাগ কেল্লায় ইদানিং বেড়েছে অসামাজিক কাজকর্ম। আহসন মঞ্জিল এলাকায় ফলের বাজারের দুর্গন্ধে কাহিল হচ্ছে সবাই। সেদিন থেকে ভিক্টরিয়া মেমোরিয়াল হল, রবীন্দ্র সদন, শ্যামবাজার, চিড়িয়াখানা বা সায়েন্স সিটি অনেক এগিয়ে রাখবে কলকাতাকে।


৯)ঢাকায় ইভটিজিং এর সংখ্যা কলকাতার তুলনায় বেশি এবং অধিকাংশ ক্ষেত্রেই মেয়েরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুক্তভোগী।


১০) অতিথি আপ্যায়নে ঢাকাবাসী টেক্কা দেবে কলকাতাকে।


১১) সড়ক পরিসেবায় কলকাতা বহুগুণ এগিয়ে ঢাকার থেকে।


ঢাকা এবং কলকাতার কিছু মানুষের সাথে কথা বলে আমরা ব্লগটগ এর তরফ থেকে দিলাম এ'কটাই পার্থক্য। সহমত, দ্বিমত থাকতেই পারে এবং তা জানান অবশ্যই আমাদের কমেন্ট বক্সে আপনার মতামত। যদিও এসবের পরেও শেষ কথা বলতেই হয়-

দূরত্ব যতই থাকুক, দিনের শেষে আমরা বাঙালি। আর বাঙালি মানেই তো সাত খুন মাফ।

কৃতজ্ঞতা স্বীকার- আফসানা, তন্দ্রা তমা এবং মুনতাসীর রিফাত। পুরো ব্লগটগ টিমের তরফ থেকে আপনাদের জানাই অসংখ্য ধন্যবাদ।

50 views
  • Facebook
  • Twitter
  • YouTube
  • Instagram

©2019 by Blogtog.