• Facebook
  • Twitter
  • YouTube
  • Instagram

Get Blogtog updates on the go

We dont Spam or play with your data

©2019 by Blogtog.

  • Blogtog

জঙ্গল বাঁচিয়ে উল্টে সরকারের বিরুদ্ধে কেস করে জিতল আমাজনের আদিবাসীরা


আমাজন বেসিনের নাম তো আপনি শুনেই থাকবেন। এই রেইন-ফরেস্টে বসবাস প্রায় ১০০ র বেশি অ্যামাজোনিয়ান ট্রাইবের। তারা বহুকাল থেকেই সেখানে। তাদের জীবন যাপন চলা ফেরা বেঁচে থাকা, সব কিছুতেই জড়িয়ে আছে আমাজন।


কিন্তু কি অদ্ভুত ভাবেই এত সবুজের মধ্যে থেকেও তাদের জীবনেও নেমে এসেছে আতঙ্কের ছায়া। না, তাদের দোষে নয়। আমাদের মতন শহুরে মানুষদের জন্য। ইকিউডারের প্রায় ৭০ শতাংশ জঙ্গল আপাতত তেল মালিকের লিজে। আরো বহু জায়গা এখনো নিলামে। যে কোনোদিন বিক্রি হয়ে যাবে কোনো মিলিওনিয়ারের কাছে।


পড়ুনঃ নাঙ্গা পর্বত: বহু বছর ধরে এই পর্বত ছিল অভিযাত্রী দের কাছে সাক্ষাৎ মৃত্যুর মতন


এমনি একটি জায়গা যাকে ইকিউডার গর্ভমেন্ট থেকে বলা হয় লেভেল ২২ সেখানে বসবাস করে ওয়ারানী(Waorani) কমিউনিটির মানুষেরা। যেই জায়গা ওতপ্রোতভাবে জড়িত সেখানকার মানুষের কাছে। এই জায়গার ওপরেও নজর পরে গভর্নমেন্টের।


কিন্তু চার বছর আগে ওয়ারানীরা ঠিক করেন তাদের পুরো জায়গাটা একটা ম্যাপের মধ্যে আনতে হবে। হাই টেকনোলজির GPS থেকে শুরু করে বহু ক্যামেরা, ড্রোনের মাধ্যমে তারা ১ লাখ আশি হাজার হেক্টর জমি ম্যাপের মধ্যে আনে।


Oswaldo Nenquimo

Oswaldo Nenquimo, একজন স্থানীয় বাসিন্দা এই কাজে নিজেকে পুরো নিয়োজিত করে। নিজেদের সাথে, আরো বাকি ৫২ ট্রাইবের প্রত্যেকের সাথে আলাদা ভাবে কথা বলে তিনি ক্যামেরা, ড্রোন এসবের কাজ হাতে ধরে শেখান। শুধু তাই নয়, নিজেদের জায়গা নিজেরাই রক্ষা করার কাজে সবাইকে এগিয়ে আসতে বলেন। প্রাকৃতিক সম্পদ যে কী, এ নিয়ে বিশেষ জ্ঞান না থাকায় এতদিন যাবৎ অবহেলার মধ্যে দিয়েই যাচ্ছিল সবাই। কিন্তু Oswando Nenquimo একটু একটু করে বোঝাতে শুরু করেন তাদের যোগাযোগের মাধ্যম, তাদের চলাফেরা, চিকিৎসা, খাদ্য সব কিছুর জন্যেই এই আমাজন একমাত্র ভরসা। এইভাবে সরকারের হাতে তুলে দেয়ার থেকে একটু একটু করে লড়াইয়ের জেদ গড়া শুরু হয় সবার মধ্যে।


পড়ুনঃ আবর্জনাহীন,সবাই শিক্ষিত অথবা দরজাহীন নিরাপদ ঘর- এমনি অদ্ভুত পাঁচটি ভারতীয় গ্রাম


GPS ক্যামেরা ড্রোন ইত্যাদি ব্যবহারের ফলে একটু একটু করে সবাই বুঝতে পারে Oswando Nenquimo র কথা। বিদ্রোহ শুরু হয় সরকারের বিরুদ্ধে। যার ফলে ইকুইডিয়ান সরকার বাধ্য হয় ব্লক-২২ কে নিলামের আওতা থেকে তুলে নিতে।

গল্পটা এখানেই শেষ নয়, ২০১৯ এ ওয়ারানীরা ল'শুট প্ল্যান করে উল্টে সরকারের বিরুদ্ধে। গত ২৬শে এপ্রিল যা জয় এনে দেয় তাদের।


কৃতজ্ঞতা: আল-জাজিরা