• Blogtog

৭৮ বছরে ছোটবেলা। আজ টম এন্ড জেরির প্রথম শো'য়ের জন্মদিন


হয়তো এমন খুব কম মানুষই আছে যারা ছোটবেলায় টিভিতে ইঁদুর বেড়ালের মারামারি দেখেনি । ঠিক ধরেছেন , ইঁদুর আর বেড়াল বলতে 'টম এন্ড জেরী' কার্টুনের কথাই বলছি । ছোটবেলা শেষ হয়েছে বটে , তবে এই কার্টুন থেকে মজার আস্বাদ নিতে কি পিছিয়ে থাকা যায় ? নীলাভ-ছাই রঙের টম আর হালকা বাদামি জেরীর সেই মিষ্টি খুনসুটি গুলো আজও আমাদের হাসির কারণ হয়ে ওঠে ।


উইলিয়াম হানা এবং জোসেফ বারবেরার মস্তিস্ক প্রণোদিত এই কার্টুনটি মুক্তি পায় ১৯৪০ সালে । রয়েছে মোট ১১৪টি দৃশ্য যার প্রত্যেকটির দৈর্ঘ্য প্রায় ৬ থেকে ১০ মিনিটের মধ্যে । 'টম অ্যান্ড জেরী' প্রথম তৈরি হয়েছিল হলিউডের মেট্রো গোল্ডউইন মেয়ার স্টুডিওতে এবং পরবতীতে হ্যানা বার্বেরা স্টুডিওতে । তবে শুধু টম আর জেরী নয় কার্টুনের বেশ কয়েকটা দৃশ্যে নতুন চরিত্র আমরা দেখেছি , যেমন এক কৃষ্ণাঙ্গ মহিলা যার মুখ কোনোদিন কেউ দেখনি অথচ কোনো কিছু হলেই তিনি টমকে ঝেঁটাপেটা করতেন ।


পড়ুনঃ আইনের উর্ধ্বে, দেশভ্রমণে লাগেনা পাসপোর্ট - অদ্ভুত কিছু ক্ষমতার অধিকারী ইংল্যান্ডের রানি


ছিল স্পাইক , এক দারোয়ান বুলডগ যে বেড়াল পেটাতে ভালোবাসতো । আর ছিল বাচ , গলিতে থাকা এক নোংরা কালো বেড়াল যার জেরীকে ধরার উত্তেজনা টমের থেকেও বেশি । এছাড়া পরবর্তীতে টেরি বলে এক ইঁদুর ছানাকেও দেখতে পাওয়া যায় যে ছিল জেরির দূরসম্পর্কের আত্মীয় । টম এন্ড জেরী কার্টুনের মূল প্রীতিপাদ্য ছিল টমের জেরীকে ধরার অক্লান্ত চেষ্টা , যেখানে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই টমকে চূড়ান্ত ভাবে বিফল হতে হতো । খুব অল্প কয়েকবার এমন দেখা গেছে যেখানে জেরীকে হারিয়ে টম বিজয়ী হয়েছে ।


যদি দুজনের চরিত্র বিচার করা যায় তাহলে দেখা যায় দুজনের মধ্যে রয়েছে বিস্তর ফারাক । টম যেখানে সহজেই রেগে গিয়ে যে কোনো ফাঁদে পা বাড়ায় সেখানে জেরী আবার ছিল স্বাধীন মনোভাবসম্পন্ন সুযোগসন্ধানী । দুটি চরিত্রেরই মধ্যেই অন্যকে একে দুঃখ দিয়ে মজা পাবার প্রবণতা লক্ষ্য করা যায় । তবুও টমের চরিত্র জেরির থেকে বেশী সচেতন দেখা যায়। জেরিকে খুব বেশি আঘাতপ্রাপ্ত, মরণাপন্ন বা মৃত মনে হলে টম খুব ভয় পেয়ে যায়। জেরী অবশ্য এমন পরিস্থিতির সুযোগ নিতেও ছাড়েনা । তবে এই ফারাক সত্বেও দুজনের মধ্যে ছিল এক গাঢ় বন্ধুত্ত্ব । তা না হলে এক সাদা বেড়ালের কাছে প্রেমে প্রতারিত হয়ে যখন আত্মহত্যার জন্য রেল লাইনে বসে ছিল টম , সেই সময় তার পাশে বসে থাকতো না জেরী ('টম এন্ড জেরী' র শেষ এপিসোড ‘ব্লু ক্যাট ব্লুজ’) । যদি এক কথায় বলা হয় তবে বলতে হয় টম আর জেরী ছিল একে অপরের পরিপূরক । একজনকে ছাড়া অন্যজন অসম্পূর্ণ।


পড়ুনঃ উত্তম-সুচিত্রা-কিশোর-ঋতুপর্ণ-র বয়স বাড়িয়েও Faceapp হেরে গেল এক কিংবদন্তীর ছবিতে এসে


আমরা ছোটবেলায় অনেক কার্টুনই দেখেছি সে ' দ্যা জঙ্গল বুক 'ই হোক বা ' দ্যা লায়ন কিং ' , ' টিমন এন্ড পুম্বা 'ই হোক কিংবা ' চিপ এন্ড ডেল ' কিন্তু ' টম এন্ড জেরী ' যেভাবে আমাদের আনন্দ দিয়েছে অন্যরা কিন্তু সেভাবে পারেনি । আর সেই কারণেই হয়তো এখনো যদি ' টম এন্ড জেরীর ' কোনো ভিডিও দেখতে পাই তাহলে আমরা হাসিতে নিজেদের হাসি আটকে রাখতে পারি না ।


(তথ্য সূত্র গুগল)



  • Facebook
  • Twitter
  • YouTube
  • Instagram

©2019 by Blogtog.