• Blogtog

মাদুরাইতে আবর্জনার প্লাস্টিক ব্যবহার করে কোনোরকম দূষণ ছাড়াই ইনি তৈরি করেছেন রাস্তা 

প্লাস্টিক । আজকাল প্রায় প্রতিটি ক্ষেত্রেই প্লাস্টিকের ব্যবহার হয়ে থাকে । খাবার জামাকাপড় থেকে শুরু করে প্রায় সবকিছু প্যাক করতে দরকার হয় প্লাস্টিকের। তবে এই প্লাস্টিকের উপর আমাদের বেড়েওঠা নির্ভরতা আমাদের ভবিষ্যতের জন্য অশনি সংকেতের চেয়ে কম নয়। সেক্ষেত্রে কেউ কেউ বলছে প্লাস্টিকের যতটা সম্ভব ব্যবহার থেকে বিরত থাকতে আবার কেউ বলছে রিসাইকেল করার কথা। তবে একজন মানুষ এমনও আছেন যিনি প্লাস্টিক ও প্লাস্টিক জাতীয় পদার্থ থেকে নিষ্কৃতী পেতে এক অভিনব পদ্ধতির আবিষ্কার করেছেন। মাদুরাই তামিলনাড়ুতে বসবাস করি ড. রাজগোপালান বাসুদেবন, যিনি প্লাস্টিক ওয়েস্ট ব্যবহার করে কোনোরকম দূষণ ছাড়াই তৈরি করেছেন রাস্তা।

২০০১ সালে ত্যাগরাজন বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের প্রধান ড. রাজগোপালান নিজের ল্যাবে একটি পরীক্ষা করেন যেখানে উনি দেখতে পান বিটুমিন এবং প্লাস্টিকের মিশ্রণ রাস্তাকে বেশি শক্তপোক্ত করে তুলতে সক্ষম। একটি সিঙ্গেল লেনে ১কিমি রাস্তা তৈরি করতে প্রায় ১০ টন বিটুমিনের প্রয়োজন হয়, সেখানে উনি ব্যবহার করলেন ৯ টন বিটুমিন আর ১ টন প্লাস্টিক (১ টন প্লাস্টিক = ১০ লক্ষ প্লাস্টিক ক্যারিব্যাগ) । যে প্লাস্টিক Decompose হতে প্রায় ১০০০ বছরের বেশি সময় লাগে , সেটা ব্যবহার করে রাস্তা তৈরি হলে দূষণ অনেকটাই কমে যায়। এই প্লাস্টিক রোড বানানোর পদ্ধতিও খুব একটা কঠিন নয়। প্রথমত , রাস্তা তৈরি করতে ব্যবহৃত পাথর গুলোকে ১৭০°c পর্যন্ত গরম করা হয় । তার পর তাতে প্লাস্টিকের কুচি গুলো যুক্ত করা হয় । যার ফলে ৩০ সেকেন্ডের মধ্যে প্লাস্টিক কুচি গুলো গলে যায় এবং পাথরের গায়ে লেগে একটি আস্তরণ তৈরি করে। এরপর যুক্ত করা হয় বিটুমিন যা প্রায় ১৬০°c গরম। ফলে তৈরি হয় সেই মিশ্রণ যা ব্যবহার করা হয় প্লাস্টিক রোড তৈরিতে। এই প্লাস্টিক রোডের উপযোগিতা অন্যান্য সাধারণ রাস্তার চেয়ে অনেকটাই বেশি।

প্রথমত, এই রাস্তা তুলনামূলক ভাবে বেশি গাড়ির ভার বহন করতে পারে। দ্বিতীয়ত, রাস্তায় কোনো লিকেজ না হওয়ায় পটহোল তৈরি হয় না। তৃতীয়ত, প্রায় ১০ বছর এই রাস্তাগুলোর কোনো মেন্টেনেন্স এর দরকার হয় না। এবং সর্বোপরি , প্লাস্টিক Decompose করার ক্ষেত্রে সবচেয়ে উন্নত প্রযুক্তি হলো এই প্লাস্টিক রোড। ড. রাজগোপালান নিজের এই আবিষ্কারকে পেটেন্ট করিয়েছেন নিজের বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে এবং ভারত সরকারকে বিনামূল্যে তার এই আবিষ্কার সপে দিয়েছেন। এখনও পর্যন্ত ভারতের ১১টি রাজ্যে প্রায় ১ লক্ষ কিমি প্লাস্টিক রোড তৈরি করা হয়েছে ড. রাজগোপালানের তত্ত্বাবধানে।

(তথ্য সংগৃহিত)

  • Facebook
  • Twitter
  • YouTube
  • Instagram

©2019 by Blogtog.